Text size A A A
Color C C C C
পাতা

সিটিজেন চার্টার

                                                                                                           

 

বাংলাদেশ বেতার                                                                                                                       

 

সিটিজেন চার্টার                                                       

সেবা কার্যক্রম নির্দেশিকা

 www.betar.org.bd

 

সংক্ষিপ্ত পরিচিতি :

দেশের প্রাচীনতম ও বৃহত্তম ইলেকট্রনিক গণমাধ্যম বাংলাদেশ বেতার । ১৯৩৯

সালের ১৬ ডিসেম্বর ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডের একটি দোতলা ভাড়া করা বাড়িতে

এর সম্প্রচারের কাজ শুরু হয়। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে ব্রিটিশ উপনিবেশিক শাসনকে

সুরক্ষা করতে ঢাকা বেতারের যাত্রা শুরু হলেও এর মাধ্যমে পরবর্তীকালে পূর্ব-

বাংলার বাঙালি জনগোষ্ঠীর সংস্কৃতির বিকাশের পথ উন্মুক্ত হয়েছিল। ১৯৭১

সালে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় এবং স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশের অগ্রযাত্রায়

এ প্রতিষ্ঠান গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে । বাংলাদেশ বেতার একটি

সরকারী সংসহা। বাংলাদেশ বেতারের সদর দপ্তরসহ ৫৪টি কেন্দ্র/ইউনিট

রয়েছে। বাংলাদেশ বেতারের ১১ টি আঞ্চলিক কেন্দ্র, ১টি প্রচার কেন্দ্র (কুমিলড়বা

) এবং ৬ টি ইউনিটের মাধ্যমে প্রতিদিন ২৩৭ ঘন্টা অনুষ্ঠান প্রচার করছে।

কেন্দ্রগুলো হচ্ছেঃ ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা, সিলেট, রাজশাহী, বরিশাল, রংপুর,

ঠাকুরগাঁও, কক্সবাজার, রাঙ্গামাটি এবং বান্দরবান। সম্প্রচারের সাথে সরাসরি

সম্পৃক্ত ইউনিটগুলো হল : বাণিজ্যিক কার্যক্রম, বহির্র্বশ্ব কাম, কৃষি বিষয়ক

কার্যক্রম, জনসংখ্যা ও পুষ্টি সেল, ট্রান্সক্রিপশন সার্ভিস এবং ট্রাফিক সম্প্রচার

কার্যক্রম। এ সকল কেন্দ্র/ইউনিট ৭১টি স্টুডিও, ১৫টি মিডিয়াম ওয়েভ, ২টি

শর্টওয়েভ ও ১০টি এফ এম ট্রান্সমিটারের মাধ্যমে অনুষ্ঠান প্রচার করে থাকে।

এছাড়াও কেন্দ্রীয় বার্তা সংসহা ও ৯টি আঞ্চলিক কেন্দ্র থেকে দৈনিক ৬০টি

সংবাদ বুলেটিন প্রচার করা হয় ।

২।  লক্ষ্য :

শ্রোতাদের বস্তুনিষ্ঠ তথ্য প্রদানে জনগণের জীবনমান উনড়বীতকরণের

জন্য শিক্ষা দান এবং নিজস্ব ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতায় সংস্কৃতি চর্চার

মাধ্যমে বিনোদন দেয়া;

সরকারের নীতি, কার্যμম ও উনড়বয়ন পরিকল্পনা সম্পর্কে শ্রোতাদের

অবহিত করা ও জাতীয় উনড়বয়ন কার্যμম তবরান্বিত করতে

জনসাধারণকে উদ্বুদ্ধকরণের মাধ্যমে তাঁদের এতে সম্পৃক্ত করা;

নৈতিক, সামাজিক ও ধর্মীয় মূল্যবোধ উনড়বত করা এবং দায়িত্ববোধ

সম্পর্কে সচেতন করার মাধ্যমে জনসাধারণের আচরণের ইতিবাচক

পরিবর্তন সাধন করা;

জাতীয় জনগুরুত্বপূর্ণ সকল বিষয়ে প্রচারাভিযান পরিচালনা করা;

জনগণের মতামত ও চিন্তা ভাবনা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তুলে ধরে

সরকার ও জনগণের মধ্যে সেতুবন্ধন রচনা করা।

৩। বাংলাদেশ বেতারের সেবা গ্রহীতা :

শিক্ষিত-নিরক্ষর নির্বিশেষে সকল বয়সের, পেশার ও শ্রেণীর

শ্রোতাগোষ্ঠি;

বেতার অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী শিল্পী, কলা-কুশলী, বুদ্ধিজীবী, শিক্ষক,

সাংবাদিক, বৈজ্ঞানিক, চিকিৎসক, ধর্মীয় নেতা, পেশাজীবীসহ যারা

বিভিনড়ব ভাবে বেতার অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন ও করতে চান;

সরকারের সকল মমত্রণালয়/বিভাগ, আধা-সরকারী, স্বায়ত্ত্বশাসিত

প্রতিষ্ঠান, আন্তর্জাতিক সংসহাসমূহ, বেসরকারী প্রতিষ্ঠান, μxড়া

সংসহা, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সংগঠনসমূহ;

বিভিনড়ব পণ্যের উৎপাদক, সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান, ব্যবসায়ীগণ এবং

তাদের এজেষ্ট, যাঁরা সার্ভিস ও পণ্যের বিজ্ঞাপন প্রদান করে থাকেন

বা করতে চান;

ব্যবসায়ী যাঁরা বেতারের সকল প্রকার যমত্রপাতি, সরঞ্জাম ও অন্যান্য

দ্রব্যাদি সরবরাহ করে থাকেন ।

৪। যে সকল বিষয় শ্রোতারা বেতারে শুনতে পান (প্রচার

কার্যμমের ক্ষেত্রসমূহ) :

বাংলাদেশ বেতার জনস্বার্থে সারা বছর প্রতিটি দিনে এর প্রচার

কার্যμমে নিমড়ববর্ণিত বিষয়গুলো প্রাধান্য দিয়ে থাকেঃ

(ক) সংবাদ, সংবাদ

পরিμমা, সংবাদ

পর্যালোচনা

(গ) কৃষি, বৃক্ষরোপণ ও

পরিবেশ সংরক্ষণ, মৎস ও

পশু সম্পদ সংরক্ষণ, বার্ড

ফড়বু প্রতিরোধ ।

(খ) জাতির উদ্দেশ্যে মহামান্য

রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী/প্রধান

উপদেষ্টার ভাষণ, গুরুত্বপূর্ণ জাতীয়

অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার।

(ঘ) মা ও শিশু স্বাসহ্য এবং পুষ্টি,

জনসংখ্যা নিয়মত্রণ, প্রজনন স্বাসহ্য,

নিরাপদ মাতৃত্ব, এইচ আই ভি/এইডস্

প্রতিরোধ, দারিদ্র্য বিমোচন কর্মসূচী,

স্যানিটেশন।

(ঙ) সুশাসন, দুর্নীতি দমন

ও প্রতিরোধ, ভেজাল

প্রতিরোধ, ধর্মীয় মূল্যবোধ,

সংস্কার ও উনড়বয়ন, মানব

সম্পদের

সদ্ব্যবহার, বিদ্যুৎ পানি ও

গ্যাসের অপচয়রোধ,

নির্বাচনে অংশ গ্রহণের জন্য

জনগণকে সচেতন করা ।

(ছ) যুব উনড়বয়ন, খেলাধুলা,

সাংস্কৃতিক বিষয় সমূহ,

(চ) আর্থ সামাজিক বিষয়সমূহ, ব্যবসা

-বাণিজ্য, কর্মসংসহান ও

আতড়বকর্মসংসহান, ক্ষুদ্র ও মাঝারী

শিল্পোদ্যোগ, আয় বর্ধনমূলক

কর্মকান্ড, সরকারের বিভিনড়ব উনড়বয়ন

কর্মকান্ড প্রচার ।

(জ) দুর্যোগ ব্যবসহাপনা, আবহাওয়া

বার্তা, বিশেষ আবহাওয়া বার্তা,

প্রতিবন্ধী কল্যাণ, প্রবীণদের দুর্যোগপূর্ব সতর্কীকরণ ও প্রস্তুতি

কল্যাণ ।

(ঝ) শিক্ষা, গণশিক্ষা,

নারী শিক্ষা বাধ্যতামূলক

প্রাথমিক শিক্ষা ।

এবং করণীয়।*

(ঞ) শিশু ও নারী উনড়বয়ন এবং

অধিকার, নারীর ক্ষমতায়ন, নারী ও

শিশু পাচার রোধ, হারানো বিজ্ঞপ্তি,

পারিবারিক মূল্যবোধ, বাল্যবিবাহরোধ,

যৌতুক প্রতিরোধ ।

*বন্যা, ঘূর্ণিঝড় এবং অন্যান্য প্রাকৃতিক দুর্যোগে বাংলাদেশ বেতার উলেস্নখযোগ্য

ভূমিকা পালন করে থাকে। এজন্য প্রতিঘন্টার সংবাদে আবহাওয়ার সর্বশেষ

সংবাদ প্রচার করে । প্রতিদিন ৪ বার আবহাওয়ার বিশেষ বিজ্ঞপ্তি প্রচার করা

হয়। এছাড়াও কৃষি বিষয়ক অনুষ্ঠানে কৃষক ভাইদের জন্য বিশেষ আবহাওয়া

বার্তা প্রচার করা হয় । ১নং বিপদ সংকেত এ সাধারণ আবহাওয়া বার্তা দিনে ৫

বার, ২ নং ও ৩নং বিপদ সংকেতে আবহাওয়ার বিশেষ &&বঞ্জপ্তি, ৩ নং নৌ বিপদ

সংকেতের ক্ষেত্রে আধা ঘন্টা পর পর এবং মহা বিপদ সংকেতের ক্ষেত্রে ১৫

মিনিট পরপর এবং আঘাত হানলে ৫ মিনিট পর পর আবহাওয়ার বিশেষ বুলেটিন

প্রচার করা হয়।

৫।

৬।

শ্রোতারা বেতার অনুষ্ঠানগুলি কী কী আঙ্গিকে শুনতে পানঃ

সংবাদ বুলেটিন, নিউজরীল, কথিকা, আলোচনা, কথোপকথন,

সাক্ষাৎকার, প্রামাণ্য প্রতিবেদন, ধারাভাষ্য, সরাসরি সম্প্রচার, গান,

গীতিনকশা, গীতি আলেখ্য, নাটক, যাত্রা, স্পট ড্রামা, শেড়বাগান, স্বাসহ্য

তথ্য, জিঙ্গেল, রেডিও ফিচার, ফোন-ইন প্রোগ্রাম, জনগুরুত্বপূর্ণ

বিজ্ঞপ্তি/ঘোষণা, রেডিও কমেডি, ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান, সংগীতালেখ্য,

উদ্বুদ্ধকরণ ও সচেতনতামূলক গান, চিঠিপত্রের উত্তর।

প্রচার কার্যμমের ভাষা :

বাংলাদেশের শ্রোতাদের জন্য বাংলা ও ইংরেজী ভাষায় অনুষ্ঠান প্রচার

হয়। বহির্বিশ্ব কার্যμম থেকে বাংলা, ইংরেজী, উর্দ্দু, হিন্দী, আরবী ও নেপালী

ভাষায় প্রতিদিন অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।

৭ । সংবাদ প্রচারের মাধ্যমে সেবা প্রদান :

কেন্দ্রীয় বার্তা সংসহা ও সকল আঞ্চলিক কেন্দ্র থেকে মোট ৬০টি

বুলেটিন প্রতিদিন প্রচারিত হয় । সকল আঞ্চলিক কেন্দ্র স্থানীয় সংবাদ পরিবেশন

করে থাকে। বাংলাদেশ বেতার থেকে দৈনিক প্রচারিত সংবাদ বুলেটিনের মধ্যে

রয়েছে ৩৩ টি প্রতিঘন্টার সংবাদ, ঢাকায় টাফিক চ্যানেলে (৯৭.৬ এফ এম )

প্রতি আধ ঘন্টা পর পর ১৫টি সংবাদ শিরোনাম, ১টি μxড়া সংবাদ, ১টি বাণিজ্য

সংবাদ, ৭টি ইংরেজী সংবাদ এবং পার্বত্য চট্টগ্রামের সহানীয় ৩টি প্রধান

উপজাতীয় জনগোষ্ঠীর জন্য ৩ টি সংবাদ বুলেটিন প্রচারিত হয়। চট্টগ্রাম কেন্দ্র

থেকে প্রতিদিন ৫ মিনিট স্থিতির চাকমা, মারমা ও ত্রিপুরা ভাষায় এই সংবাদগুলি

প্রচার করা হয় এবং তা বান্দরবান , রাঙ্গামাটি ও কক্সবাজার কেন্দ্র থেকে রীলে

করা হয়। ঢাকা কেন্দ্র থেকে প্রতিদিন রাত ১০ টায় জাতীয় ভাবে ২ মিনিটের

সংবাদ শিরোনাম প্রচার করা হয় । বর্হির্বিশ্ব কার্যμমের প্রতিটি অধিবেশনে

সংশিড়বষ্ট সকল ভাষায় বুলেটিন প্রচারিত হয় । এ ছাড়া বাংলাদেশ বেতারের

ওয়েবসাইটে সকাল ৭ টার বাংলা এবং সকাল ৮ টার ইংরেজী সংবাদের টেক্সট

ভার্সন প্রতিদিন আপডেট করা হয়।

সহানীয় সংবাদ, ক্রীড়া সংবাদ ও বাণিজ্য সংবাদ ব্যতিত সকল

বুলেটিনে গুরুত্বপূর্ণ এবং উলেখযোগ্য জাতীয়, আন্তর্জাতিক ক্রীড়া ও আবহাওয়ার

খবর বসত্মুনিষ্ঠ ও নিরপেক্ষভাবে প্রচারিত হয় । এ ছাড়া আঞ্চলিক সহযোগিতা

বৃদ্ধির লক্ষ্যে সপ্তাহে একবার প্রতি সোমবার বাংলা ও ইংরেজীতে ১৫ মিনিটব্যাপী

সার্ক বুলেটিন প্রচার করা হয় ।

৮। অনুষ্ঠান প্রচারের মাধ্যমে সেবা প্রদান :

(ক) কৃষি বিষয়ক অনুষ্ঠানঃ

কৃষকদের চাষাবাদের মৌসুমে বিভিনড়ব সমস্যা ও করণীয়

বিষয়ে আলোকপাত করা হয় ।

কৃষি বিষয়ক সর্বাধুনিক প্রযুক্তি কৃষকদের অবহিত করা হয় ।

সার, বীজ, কীটনাশকসহ কৃষি উপকরণ ও যমত্রপাতি

কোথায় পাওয়া যায় জানানো হয় ।

কৃষি ঋণ পাওয়ার উপায় জানানো হয় ।

বিভিনড়ব শষ্য,ফুল, ফল, শাক-সবজি চাষাবাদ ও মৎস্য ও পশু

সম্পদ পরিচর্ষা বিষয়ে পরামর্শ দেয়া হয় উৎপাদিত কৃষি পণ্য

সংরক্ষণ, পঙয়াজাতকরণ ও বাজারজাত করণ সম্পর্কে অবহিত

করা হয়।

(খ) জনসংখ্যা, স্বাসহ্য ও পুষ্টি বিষয়ক অনুষ্ঠান :

জনসংখ্যা সমস্যা সম্পর্কে জনগনকে সচেতন করা এবং

সমসা সমাধানে উদ্বুদ্ধ করা ।

স্বাসহ্য বিষয়ক সমস্যা ও করণীয়, বিভিনড়ব রোগের কারণ,

প্রতিরোধ, প্রতিকার ।

স্বাসহ্য সম্পর্কিত সচেতনতা, স্যানিটেশন, নিরাপদ পানি

ব্যবহার, টীকা দান, নিরাপদ মাতৃত্ব , শিশুদের মাতৃদুগ্ধ পান

করানোর জন্য মায়েদের উৎসাহিতকরণসহ বিভিনড়ব বিষয়ে

শ্রোতাদের উদ্বুদ্ধ করা।

(গ) শিশুদের জন্য অনুষ্ঠান :

শিশুদের মুক্ত প্রতিভা বিকাশের জন্য এবং শিশুদের

অংশগ্রহণে বিভিনড়ব কেন্দ্র থেকে অনুষ্ঠান প্রচার করা।

শিশু অধিকার সম্পর্কে শ্রোতাদের সচেতন করা ।

শিশুদের অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণের জন্য অনুষ্ঠানের নাম ও

 

(ঘ) মহিলাদের জন্য অনুষ্ঠানঃ

মহিলাদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করে বিভিনড়ব কেন্দ্র থেকে

অনুষ্ঠান প্রচার করা ।

নারীর ক্ষমতায়নে প্রতিবন্ধকতাসমূহ দূর করার উপায় নিয়ে

আলোচনা ।

জাতীয় উনড়বয়নের মূলধারায় নারীর অংশগ্রহণের সুযোগ বৃদ্ধির

উপায় জানানো 

 

নারী শিক্ষা, নারীর প্রতি সহিংসতা অবসান, পরিবারে ও

সমাজে নারী-পুরুষের বৈষম্য হ্রাসের লক্ষ্যে উদ্বুদ্ধ করা ।

(ঙ) যুবগোষ্ঠির জন্য অনুষ্ঠানঃ

যুবকদেরকে বিভিনড়ব উনড়বয়নমূলক কাজে উদ্বুদ্ধ করা ।

যুবকদের বিভিনড়ব প্রতিভার বিকাশের সুযোগ করে দেয়া ।

বেকার যুবকদের আত্মকর্মসংসহানের বিষয়ে পরামর্শ দেয়া ।

 

 

(চ) উপজাতীয়দের জন্য অনুষ্ঠানঃ

বাংলাদেশ বেতারের নিমড়ববর্ণিত কেন্দ্রগুলো থেকে উপজাতীয়

ভাষায় সংশ্লিষ্ট নৃ-গোষ্ঠির শিল্পীদের অংশগ্রহণে বিভিনড়ব অনুষ্ঠান

প্রচার করা হয়ঃ

ঢাকা-কঃ সাল-গীত্তাল(গারো) বিকেল ৫-১০মিঃ থেকে ৫-৪৫মিঃ

(প্রতি রμবার )

চট্টগ্রামঃ পাহাড়িকা বিকেল ৪-০৫টা হতে ৫টা

(প্রতিদিন )।

(চাকমা, মারমা ও ত্রিপুরা ভাষায়)

রাজশাহীঃ মাদল(সাঁওতাল) বেলা ২-৩০মিঃ থেকে ৩-০০ টা

(প্রতি বুধবার )

রংপুরঃ মহুয়া(সাঁওতাল) বিকেল ৩-৩০মিঃ হতে ৪টা (প্রতি

মঙ্গলবার )

সিলেটঃ

রাঙ্গামাটিঃ

কক্সবাজারঃ

বান্দরবানঃ

ঠাকুরগাঁওঃ

মৃদংগ(মনিপুরী) বিকেল ৩-০৫ থেকে ৩-৩০মিঃ

( প্রতি রোববার )

গিরিসুর(চাকমা) বিকেল ৩-১৫মিঃ থেকে ৩-৩৫মিঃ

(প্রতিদিন )

রাখাইন ও মারমা গান বিকেল ৩-১০মিঃ থেকে ৪-০০ টা

(প্রতি বুধবার )

বনকুঁড়ি(চাকমা, মারমা) বিকেল ৪-০৫মিঃ থেকে ৪-১৫মিঃ

(মাসের প্রম রোববার )

শাল-পিয়াল(সাঁওতাল) বিকেল ৪-৩০ থেকে ( মাসের প্রম

ও তৃতীয় রবিবার )।

(ছ) শিক্ষার্থীদের জন্য অনুষ্ঠান :

স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা এসব অনুষ্ঠানে

তাদের প্রতিষ্ঠানের মাধামে দলীয়ভাবে অংশ গ্রহণ করে ।

স্কাউট সদস্যগণ দলীয়ভাবে তাদের প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে

বেতার অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণ করতে পারে । শিক্ষার্থীদের জন্য

বিষয় ভিত্তিক শিক্ষামূলক অনুষঠানের আয়োজন করা হয়

যেখানে শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীগণ অংশগ্রহণ করে থাকে ।

শিক্ষার্থীদের জন্য প্রচারিত অনুষ্ঠানের নাম ও

সময়সূচী :

ঢাকা-কঃ শিক্ষার্থীদের আসর বিকেল৫-১০মিঃ (রμ,শনি ও রবিবার

ব্যতিত প্রত্যহ)

ইংলিশ ফর টুডে বিকেল ৫-৩০ মিঃ (সোম,মঙ্গল, বুধ ও

বৃহস্পতিবার)

ঢাকা-খঃ

চট্টগ্রামঃ

পড়াশোনা

শিক্ষাঙ্গন

সন্ধ্যে ৭-৩০ মিঃ (প্রতি শনি ও রবিবার)

বিকেল ৫-১০ মিঃ ( রμও শনিবার

ব্যতিত প্রতিদিন )।

রাজশাহীঃ

বরিশালঃ

নবারুণ

এসো শিখি

বেলা ২-৩০মিঃ( প্রতি শনি ও মঙ্গলবার)

দুপুর ১২-৩০ মিঃ (রμও শনিবার

ব্যতিত প্রতিদিন)

রাঙ্গামাটিঃ অগ্রপথিক বিকেল ২-৪৫মিঃ (মাসের ২য়

বৃহস্পতিবার )

কক্সবাজারঃ এসো পড়ি বিকেল ৪-০৫মিঃ (মাসের ১ম ও ৩য়

মঙ্গলবার)

(জ) সংগীতঃ

রবীন্দ্র সংগীত, নজরুল সংগীত, পলী গীতি, দেশের গান,

আধুনিক গান, লালন গীতি, উচচাংগ সংগীতসহ বিভিনড়ব

ধরণের সংগীত দিনব্যাপী প্রচারিত হয় । বেতারে সবচেয়ে

জনপ্রিয় অনুষ্ঠান গান। শ্রোতাদের পছন্দের গান নিমড়ববর্ণিত

অনুষ্ঠানগুলিতে প্রচার করা হয়ঃ

ঢাকা-কঃ

ঢাকা-খঃ

ঢট্টগ্রামঃ

রাজশাহীঃ

খুলনাঃ

রংপুরঃ

সিলেটঃ

বরিশালঃ

ঠাকুরগাঁওঃ

রাঙ্গামাটিঃ

কক্সবাজারঃ

নিবেদন - রাত ১০ টায় ( প্রতি রবিবার ),

আমার প্রিয় গান- রাত ১০ টা ( প্রতি বৃহস্পতিবার ),

গানের ঢালী - সকাল ১০ টা ( প্রতিদিন )

ঝংকার- সকাল ১১ টা ( প্রত্যহ, রμও শনি ব্যতিত )

ছায়াছন্দ - সন্ধ্যে ৬-২০টা (প্রতি রμও শনিবার )

প্রিয় গান- রাত ১০ টায় ( প্রতি সোমবার ),

নন্দিতা - রাত ১০ টায় ( প্রতি রμবার ),

মনময়ুরী - রাত ১০ টা ( প্রতি রμবার ),

সুরব্যঞ্জনা - রাত ১০ টা ( প্রতি সোমবার ),

নিবেদন - রাত ১০ টা ( প্রতি মঙ্গলবার ),

অনুরোধ - রাত ১০ টা ( প্রতি রμবার ),

ছায়াছন্দ রাত ১০ টা ( প্রতি বুধবার ),

ধীরে বোলাও গাড়ী - রাত ১০ টা ( মাসের প্র ম মঙ্গলবার),

অনুরাগ - রাত ১০ টা ( প্রতি শনিবার ),

প্রত্যাশা - বেলা ২-৩৫ মিঃ ( প্রতি রবিবার ),

চাওযা-পাওয়া - বিকেল ৫-২০মিঃ ( প্রতি বুধবার ),

মিতালী - বিকেল ৫-২০মিঃ ( প্রতি রμবার ),

মনের মত গানঃ বেলা ৩-৩৫ মিঃ (প্রত্যহ, রμও সোমবার

ব্যাতিত ),

চাওয়া পাওয়া -বেলা ৪-০৫ মিঃ (মাসের প্রম ও তৃতীয়

μবার ),

বান্দরবানঃ তোমার জন্য গানঃ বেলা ১-৩০ মিঃ ( প্রতি বুধবার ),

চাওয়া - পাওয়া - বেলা ১-৩০ মিঃ ( প্রতি সোমবার )

পছন্দের গান শুনতে হলে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের প্রযোজক বরাবর গানের

প্রম লাইন ও শিল্পীর নাম উলেখ করে পত্র/ফ্যাক্স/ই-মেইল প্রেরণ

করতে হয় । বিভিনড়ব দেশের, বিভিনড়ব ভাষার গান দিয়ে বিভিনড়ব কেন্দ্র

থেকে ওয়ার্ল্ড মিউজিক প্রচার করা হয় ।

বিভিনড়ব অনুষ্ঠানের প্রয়োজনে পত্র যোগাযোগের ঠিকানাঃ

(অনুষ্ঠানের নাম)

প্রযোজক

প্রযতেড়বু আঞ্চলিক পরিচালক

বাংলাদেশ বেতার, --------------( সংশিড়বষ্ট কেন্দ্রের নাম )।

(ঝ) বিনোদন :

শিল্পীদের পৃষ্ঠপোষকতায় বাংলাদেশ বেতার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন

করে । দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে প্রতিভাবান শিল্পীদেরকে বাছাই করে

তাদেরকে নিয়মিত বেতার অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের সুযোগ করে দিয়ে তাদের

প্রতিভা বিকাশে ভুমিকা রাখে। এছাড়াও বিভিনড়ব ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান, টকশো,

ফোন-ইন-প্রোগ্রাম ও বহিরাঙ্গন এর মাধ্যমে সাধারণ শ্রোতাদের তথ্য ও

বিনোদন এর ব্যবসহা করা হয় । এ ছাড়া, সৈনিক ভাইদের জন্য অনুষ্ঠান দুর্বার

প্রচার করা হয় ।

৯ । বাংলাদেশ বেতার বিনামূল্যে যে সকল সেবা প্রদান করেঃ

(ক) নিখোঁজ ব্যক্তি সম্পর্কে হারানো বিজ্ঞপ্তি প্রচারে

করণীয়ঃ

অসাবধানতা বশত: অনেকের প্রিয় সন্তান,শিশু-কিশোররা হারিয়ে গেলে

সেক্ষেত্রে প্রমে সংশ্লিষ্ট থানায় ডায়েরী করতে হয়। ডায়েরীর কপিসহ বেতারের

নির্ধারিত ফরমে আবেদন করলে আবেদনপত্র প্রাপ্তির এক কর্মদিবসের মধ্যে

বিনামূল্যে নিখোঁজ সংবাদ প্রচার করা হয় । সম্ভব না হলে দুই কর্মদিবসের মধ্যে

অবশ্যই প্রচার করা হয় । নির্ধারিত ফরম বিনামূল্যে বাংলাদেশ বেতারের বিভিনড়ব

কেন্দ্র থেকে বা বাংলাদেশ বেতারের ওয়েব সাইট থেকে সংগ্রহ করা যায়।

এছাড়া স্বরাষ্ট্র মমত্রণালয় থেকে প্রাপ্ত নারী পুরম্নষ ও শিশু - কিশোর নিখোঁজ

ব্যক্তিদের সংবাদও বাংলাদেশ বেতার প্রচার করে থাকে।

(খ) মুমূর্ষু রোগীদের জীবন বাঁচাতে রক্তদানের বিজ্ঞপ্তি

প্রচারে করণীয় :

সংশ্লিষ্ট রোগীর রক্ত সঞ্চালনের জন্য চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান/

হাসপাতাল/বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক কর্তৃক প্রদত্ত চাহিদাপত্রের কপিসহ বাংলাদেশ

বেতারের যে কোন কেন্দ্রে রোগীর পক্ষ থেকে তার প্রতিনিধি সাদা কাগজে

আবেদন করলে যথাসম্ভব শিঘ্র বিজ্ঞপ্তি প্রচারের ব্যবসহা নেয়া হয় ।

(গ) জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিজ্ঞপ্তি :

পাবলিক সার্ভিস কমিশন প্রদত্ত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি, আই এস পি আর

১০

কর্তৃক প্রদত্ত বিভিনড়ব প্রকার জনগুরুত্বসম্পনড়ব বিজ্ঞপ্তি, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহের

গুরুত্বপূর্ণ বিজ্ঞপ্তি, যানবাহনের সময়-সূচী, বিভিনড়ব শহরের উলেখযোগ্য অনুষ্ঠান

প্রচারের জন্য সংশ্লিষ্ট কেন্দ্র/ইউনিটের আঞ্চলিক পরিচালক/পরিচালক বরাবরে

বিজ্ঞপ্তি প্রেরণ করলে যথাসম্ভব শিঘ্র তা প্রচারের বাবসহা নেয়া হয় ।

(ঘ) তালিকাভুক্ত শিল্পী হওয়ার জন্য করণীয় :

দেশের শহর, গ্রাম ও প্রত্যন্ত অঞ্চলে অনেক সুপ্ত প্রতিভবান শিল্পী

রয়েছেন, বাংলাদেশ বেতার এসব প্রতিভাবান শিল্পীদের প্রতিভা বিকাশের সুযোগ

করে দিতে প্রতিটি কেন্দ্র বছরে দুবার কন্ঠস্বর পরীক্ষার আয়োজন করে থাকে ।

এ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার মাধ্যমে বেতারের তালিকাভুক্ত শিল্পী হওয়া যায় ।

তালিকাভুক্ত শিল্পীগণকে শ্রেণী অনুযায়ী বেতারের নির্ধারিত শিল্পী সম্মানী কাঠামো

অনুসারে অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের জন্য চুক্তিবদ্ধ করা হয় এবং সম্মানী প্রদান করা

হয়। প্রত্যন্ত অঞ্চলের তালিকাভুক্ত শিল্পীদেরকে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রে বেতার অনুষ্ঠানে

অংশ গ্রহণের জন্য যাতায়াত ভাতা প্রদান করা হয়। কন্ঠস্বর পরীক্ষার মাধ্যমে

সাধারণতঃ গ-শ্রেণীতে তালিকাভুক্ত শিল্পী হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হয় ।

তালিকাভুক্ত শিল্পী হতে হলে করণীয় নিমেড়ব উপসহাপন করা হলোঃ

১) সংগীত শিল্পী :

রবীন্দ্র ও নজরুল সংগীতের ক্ষেত্রে বেতার নির্ধারিত ১৫ টি

গান এবং শিল্পীর জানা ১৫টি গানের তালিকা প্রদান করতে

হয়। এছাড়া দেশের গান ও আধুনিক গান ও পল্লী গানের

ক্ষেত্রে শিল্পীর জানা ৩০টি গানের তালিকা আবেদন পত্রের

সাথে যুক্ত করতে হয়,

সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের আঞ্চলিক পরিচালক/ পরিচালক বরাবর সাদা

কাগজে আবেদন করতে হয়। আবেদন পত্রের সাথে কোন ফি

/টাকা জমা দিতে হয় না। তবে আবেদনের সাথে নাগরিকত্ব

সনদপত্র, ২ কপি পাসপোর্ট আকারের ছবি এবং শিক্ষাগত

যোগ্যতার সনদপত্র(যদি থাকে) জমা দিতে হয়,

আবেদন পত্রে উল্লিখিত ঠিকানায় পত্র প্রেরণ করে কন্ঠস্বর

পরীক্ষার জন্য শিল্পীকে আমন্ত্রণ জানানো হয়,

শিশুশিল্পীর ক্ষেত্রে উপানুচ্ছেদ (১) এ বর্ণিত গানের তালিকা

প্রদানের প্রয়োজন নেই।

তালিকাভুক্ত শিল্পীদেরকে নির্ধারিত শিল্পী-সম্মানী কাঠামো

অনুযায়ী অনুষ্ঠানের জন্য চুক্তিবদ্ধ করে সম্মানী প্রদান করা হয়

১১

(২) নাট্য শিল্পী ও ঘোষক/ঘোষিকা :

আবেদনকারীকে কমপক্ষে এইচ এস সি বা সমমানের

পরীক্ষায় উত্তীর্ণ এবং শুদ্ধ উচ্চারণ ও সুকন্ঠের

অধিকারী/অধিকারিণী হতে হয়,

সংশ্লিষ্ট আঞ্চলিক পরিচালক/পরিচালক বরাবর সাদা কাগজে

আবেদন করতে হয়। আবেদনপত্রের সাথে কোন ফি /টাকা

জমা দিতে হয় না। তবে আবেদনের সাথে নাগরিকত্ব

সনদপত্র, ২ কপি পাসপোর্ট আকারের ছবি এবং শিক্ষাগত

যোগ্যতার সনদপত্র জমা দিতে হয়,

আবেদন পত্রে উল্লিখিত ঠিকানায় পত্র প্রেরণ করে কন্ঠস্বর

পরীক্ষার জন্য শিল্পীকে আমন্ত্রণ জানানো হয়,

শিশু-কিশোরদের অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণের জন্য

অভিভাবকদের সম্মতিμমে সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের প্রধান

শিক্ষকের সুপারিশμমে শিশু-কিশোর শিল্পীরা আবেদন

করতে পারে,

বছরে ২(দুই) বার কন্ঠস্বর পরীক্ষার ব্যবসহা গ্রহণ করা হয়

তালিকাভুক্ত শিল্পীদেরকে নির্ধারিত শিল্পী সম্মানী কাঠামো

অনুযায়ী অনুষ্ঠানের জন্য চুক্তিবদ্ধকরে সম্মানী প্রদান করাহয়।

(৩) সংবাদ পাঠক/পাঠিকা :

আবেদনকারী/আবেদনকারিনীকে কমপক্ষে এইচএসসি বা

সমমানের পরীক্ষায় পাশ হতে হয়। আবেদন পত্রের সাথে

কোন ফি /টাকা জমা দিতে হয় না। তবে আবেদনের সাথে

নাগরিকত্ব সনদপত্র, ২ কপি পাসপোর্ট আকারের ছবি এবং

শিক্ষাগত যোগ্যতা সনদপত্র (যদি থাকে) জমা দিতে হয়,

আবেদনকারী/আবেদনকারিনীকে শুদ্ধ উচ্চারণ ও সুকন্ঠের

অধিকারী/অধিকারিনী হতে হয়,

সংশ্লিষ্ট আঞ্চলিক বার্তা নিয়মত্রক/ পরিচালক,বার্তা বরাবর

সাদা কাগজে আবেদন করতে হয়,

আবেদনপত্রের ঠিকানা অনুযায়ী পত্র প্রেরণ করে কন্ঠস্বর

পরীক্ষার জন্য ৬ মাসের মধ্যে শিল্পীকে আমত্রণ জানানো হয়

এবং নির্বাচিত হওয়ার সাথে সাথে সংবাদ পাঠক/পাঠিকাদের

জানিয়ে দেয়া হয়,

বছরে ২(দুই) বার কন্ঠস্বর পরীক্ষার ব্যবসহা গ্রহণ করা হয় ।

তালিকাভুক্ত শিল্পীদেরকে নির্ধারিতশিল্পী সম্মানী কাঠামো

অনুযায়ী অনুষ্ঠানের জন্য চুক্তিবদ্ধকরে সম্মানী প্রদান করা

হয়।

১২

(৪) গীতিকার :

নিজের লেখা ২৫ টি গানের পান্ডুলিপি সহ সংশ্লিষ্ট আঞ্চলিক

পরিচালক / পরিচালক বরাবর আবেদন করতে হয় ।

আবেদন করার ৬ মাসের মধ্যে নির্ধারিত বোর্ড কর্তৃক

যোগ্যতা বিচার করে গীতিকার নির্বাচন করা হয় এবং

নির্বাচিত গীতিকারকে সাথে সাথে পত্র দিয়ে জানানো হয় ।

গান প্রচারের সংখ্যা অনুযায়ী গীতিকার নির্ধারিত হারে

রয়েলটি প্রাপ্য হন ।

যে কোন কেন্দ্রে তালিকাভুক্ত গীতিকারের গান সকল কেন্দ্র

থেকে প্রচার করা হয় ।

বেতারের তালিকাভুক্ত গীতিকার ছাডা অন্য কারও গান

বেতারে প্রচার করা হয় না ।

(৫) সূরকার ও বাদ্যযন্ত্রী :

আবেদনকারীর গানের সুর, তাল ও লয় সম্পর্কে দক্ষতা

থাকতে হয়,

সংশ্লিষ্ট আঞ্চলিক পরিচালক/পরিচালক বরাবর সাদা কাগজে

আবেদন করতে হয়। আবেদন পত্রের সাথে কোন ফি /টাকা

জমা দিতে হয় না। তবে আবেদনের সাথে নাগরিকত্ব

সনদপত্র, ২ কপি পাসপোর্ট আকারের ছবি এবং শিক্ষাগত

যোগ্যতার সনদপত্র(যদি থাকে) জমা দিতে হয়,

আবেদন করার সর্বোচ্চ ৬ মাসের মধ্যে নির্ধারিত বোর্ড কর্তৃক

পরীক্ষা গ্রহণ করে যোগ্য প্রার্থী নির্বাচন করা হয় এবং

তাঁদেরকে তালিকাভুক্ত করা হয় ।

সুরকারদের অডিশনের সময় তাৎক্ষনিকভাবে নতুন গানের

সুরারোপ করতে হয়,

তালিকাভুক্ত সুরকারগণকে নির্ধারিত শিল্পী-সম্মানী কাঠামো

অনুযায়ী সুর ও সংগীত পরিচালনার জন্য সম্মানী প্রদান করা

হয় ।

(৬) নাট্যকার :

নিজের লেখা নাটকের পান্ডুলিপিসহ আঞ্চলিক পরিচালক/

পরিচালক বরাবর আবেদন করতে হয়। আবেদনপত্রের সাথে

১৩

কোন ফি /টাকা জমা দিতে হয় না। তবে সাদা কাগজে

আবেদনের সাথে নাগরিকত্ব সনদপত্র, ২ কপি পাসপোর্ট

আকারের ছবি এবং শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্র(যদি

থাকে) জমা দিতে হয়,

নাটকের পান্ডুলিপি বেতারে প্রচার উপযোগী বিবেচিত হলে

তাঁকে ৬ মাসের মধ্যে নাট্যকার হিসেবে তালিকাভুক্ত করা

হয় ।

নাটক প্রচারের সময় ও সংখ্যা শ্রেণী অনুযায়ী নাট্যকারকে

রয়্যালটি প্রদান করা হয় ।

(৭) কথক/আলোচক :

শিক্ষক, সাংবাদিক, চিকিৎসক, পেশাজীবিসহ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে

বিশেষজ্ঞ হতে হয়,

উচ্চারণ ও উপসহাপনা মানসম্মত হতে হয়,

সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বেতারে প্রচার উপযোগী পান্ডুলিপি রচনায়

সক্ষম হতে হয়,

পান্ডুলিপি ও অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণের জন্য নির্ধারিত হারে

সম্মানী প্রদান করা হয় ।

বেতারের সংশ্লিষ্ট প্রযোজক/পরিচালক সরাসরি

কথক/আলোচকদের সাথে যোগাযোগ করে থাকেন,

কোন বিশেষজ্ঞ বিশেষ কোন অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণ করতে

চাইলে তিনি নিজে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের আঞ্চলিক

পরিচালক/ইউনিট প্রধানের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন

। পরস্পরের মধ্যে আলোচনাμমে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে

অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করার সুযোগ দেয়া হয় ।

(ঙ) কোন বিষয় জানতে চাইলে :

কোন অনুষ্ঠানের বিষয়বসত্মু, উপসহাপনার মান,

আঙ্গিক/কারিগরী মানসহ যে কোন বিষয়ে শ্রোতাদের মতামত

বাংলাদেশ বেতার সর্বদা আহবান করে থাকে । এ ছাড়া

শ্রোতারা কোন বিষয় সম্পর্কে জানতে চাইলে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের

আঞ্চলিক পরিচালক/পরিচালক অথবা সংশ্লিষ্ট অনুষ্ঠানের

প্রযোজক বরাবর পত্র প্রেরণ করতে হয়। পত্রের উত্তর ২

সপ্তাহের মধ্যে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্র থেকে প্রচারিত চিঠি পত্রের

জবাব অনুষ্ঠানে দেয়া হয়। একটি বিষয়ে একাধিক পত্র

থাকলে শুধুমাত্র প্রাপ্তি স্বীকার করা হয় ।

১৪

চিঠিপত্রের জবাব দানের অনুষ্ঠানের নাম ও প্রচার সময়ঃ

ঢাকা -ক সমীপেষু রাত ৯-১৫ মিঃ ( প্রতি

শনিবার ),

চট্টগ্রাম

রাজশাহী

খুলনা

রংপুর

সিলেট

বরিশাল

উত্তরলিপি

সুজনেষু

লিপিকা

পত্রগুচ্ছ

নিবেদন

পরিচয়

৯-০৫মিঃ ( প্রতি সোমবার ),

রাত ৮-১০মিঃ ( প্রতি রμবার )

রাত ৯-১০মিঃ ( প্রতি মঙ্গলবার ),

বেলা ৩-৩০মিঃ (প্রতি সোমবার ),

৮-১০মিঃ ( প্রতি রμবার )

বেলা ২-১০ মিঃ ( মাসের প্রম, তৃতীয়

ও পঞ্চম সোমবার ),

ঠাকুরগাঁও

কক্সবাজার

পত্রালাপঃ

মেলবন্ধনঃ

সন্ধ্যে ৬-০৫মিঃ ( মাসের দ্বিতীয় ও ৪র্থ

রবিবার ),

বেলা ৩-২০ মিঃ ( মাসের প্র ম ও

তৃতীয় রμবার )।

(চ) শিশুদের অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণ করতে হলে :

শিশুকে বেতার অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণের সুযোগ করে দিতে

চাইলে শিশুকে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে পারদর্শী করে তুলতে হবে ।

তালিকাভুক্ত শিশুশিল্পী হওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট আঞ্চলিক

পরিচালক/পরিচালক বরাবর সাদা কাগজে আবেদন করতে

হয় । আবেদনপত্রের সাথে কোন ফি /টাকা জমা দিতে হয়

না। তবে আবেদনের সাথে নাগরিকত্ব সনদপত্র, ২ কপি

পাসপোর্ট আকারের ছবি এবং শিক্ষাগত যোগ্যতার

সনদপত্র(যদি থাকে) জমা দিতে হয়,

অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণের জন্য তালিকাভুক্ত শিশুশিল্পীদের

নির্ধারিত হারে সম্মানী প্রদান করা হয় ।

তালিকাভুক্ত নয় এমন শিশুশিল্পীদের অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণের

জন্য কচি-কাঁচার আসর/ছোট্টমনিদের আসরে অংশ গ্রহণের

সুযোগ রয়েছে । এক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট অনুষ্ঠানের প্রযোজক

বরাবর পত্র লিখে অথবা সরাসরি যোগাযোগ করে সুযোগ

গ্রহণ করা যেতে পারে ।

(ছ) সংগীত শিক্ষার আসরে অংশ গ্রহণ করতে করণীয় :

শিশু কিশোরদেরকে সংগীত বিষয়ে পারদর্শী করে তোলার জন্য বেতারে

সংগীত শিক্ষার আসর রয়েছে । অনুষ্ঠানে সংগীতে বিশেষ পারদর্শী ওস্তাদগণ

১৫

সংগীতের তালিম দিয়ে থাকেন । অনুষ্ঠানটি সরাসরি বেতারে প্রচার করা হয়

এবং এতে শিশুকিশোররা অংশগ্রহণ করতে পারে ।

গান শেখার অনুষ্ঠানের সময়সূচী :

ঢাকাঃ

চট্টগ্রামঃ

রাজশাহীঃ

রংপুরঃ

সিলেটঃ

খুলনাঃ

সংগীত শিক্ষার আসর - বেলা ১১-০৫মিঃ ( প্রতি রμবার )।

স্বরলিপি - সকাল ৮-৩০মিঃ ( প্রতি রμবার )।

সংগীত শিক্ষার আসর - সকাল ৮-১৫মিঃ ( প্রতি শনিবার )।

সারেগামা - সকাল ৯-৪০মিঃ ( প্রতি বৃহস্পতিবার )।

সারেগামা - বিকেল ৩-০৫মিঃ ( প্রতি মঙ্গলবার )।

সংগীত শিক্ষার আসর - সকাল ৮-৩০ মিঃ ( প্রতি রμবার )

এ অনুষ্ঠান থেকে অনেক শিল্পী পরবর্তীতে কন্ঠস্বর পরীক্ষার

মাধ্যমে বেতারে তালিকাভুক্ত শিল্পী হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হয়ে

থাকেন ।

(জ) সংবাদ প্রদান করতে চাইলে :

সরকারের সংশ্লিষ্ট সকল মমত্রণালয়/বিভাগ, আধা সরকারী

প্রতিষ্ঠানের খবর তথ্য অধিদপ্তর, বাংলাদেশ সংবাদ সংসহা ও অন্যান্য

অনুমোদিত সংবাদ সংসহার মাধ্যমে বাংলাদেশ বেতার গ্রহণ করে

থাকে । এ ছাড়া যে কোন প্রেস বিজ্ঞপ্তি সরাসরি কেন্দ্রীয় বার্তা

সংসহার ফ্যাক্স নং ০২-৮১১৩৩৫৯এ প্রেরণ করা যাবে। এছাড়া

দেশব্যপী বাংলাদেশ বেতারের নগর/জেলা/উপজেলা সংবাদদাতাগণ

সংশ্লিষ্ট অঞ্চলের গুরুত্বপূর্ণ খবর নিজেরাই সংগ্রহ করে থাকেন।

জনগুরূত্বসম্পনড়ব যে কোন খবর প্রচারের জন্য বা মতামত জানানোর

জন্য নিমেড়ববর্ণিত যে কোন কেন্দ্রে ফোনে শ্রোতারা যোগাযোগ করতে

পারেন ।

১। কেন্দ্রীয় বার্তা সংস্থা, ঢাকা

২। আঞ্চলিক বার্তা নিয়মত্রক, চট্টগ্রাম

৮১১৫০৭২, ৮১১৫০৭৯

০৩১-৭১২৭০৯

৩। আঞ্চলিক বার্তা নিয়মত্রক, রাজশাহী ০৭২১-৭৭৫৬৭৬

৪। আঞ্চলিক বার্তা নিয়মত্রক, রংপুর

৫। আঞ্চলিক বার্তা নিয়মত্রক, সিলেট

৬। আঞ্চলিক বার্তা নিয়মত্রক, খুলনা

০৫২১-৬৩০৯৮

০৮২১-৭১৬২১৯

০৪১-৭৬২৪৪৭

৭। উপ-বার্তা নিয়মত্রক, ঠাকুরগাঁও ০৫৬১-৫৩৫৮০

৮। উপ-বার্তা নিয়মত্রক, রাঙ্গামাটি ০৩৫১-৭১০০৬

৯। উপ-বার্তা নিয়মত্রক, বান্দরবান ০৩৬১-৬৩৩৬৬

১০। উপ-বার্তা নিয়মত্রক, কক্সবাজার ০৩৪১-৬৩৬৮৬

১১। উপ-বার্তা নিয়মত্রক, বরিশাল ০৪৩১-৭১৯৭১

 

১৩। বাংলাদেশ বেতারে নির্ধারিত মূল্যের বিনিময়ে বিজ্ঞাপন প্রচার

করতে করণীয় :

বেতারের বাণিজ্যিক কার্যμমে সরাসরি অথবা তালিকাভুক্ত

বিজ্ঞাপনী সংসহার মাধ্যমে চুক্তি বদ্ধ হতে হয়।

বিজ্ঞাপনের বক্তব্য মমত্রণালয়ের অনুমোদিত নীতিমালা

অনুযায়ী বেতার কর্তৃক অনুমোদিত হতে হয় ।

বিজ্ঞাপন প্রচারে নির্ধারিত মূল্য অগ্রিম প্রদান করতে হয় ।

বিজ্ঞাপন প্রচারের হার সরকার কর্তৃক পুন:নির্ধারণ করা হয়ে

থাকে ।

বাংলাদেশ বেতার ঢাকাসহ সকল আঞ্চলিক কেন্দ্রে বিজ্ঞাপন

প্রচার করতে হলে বাণিজ্যিক কার্যμম, ১২১কাজী নজরুল

ইসলাম এভিনিউ, শাহবাগ, ঢাকায় যোগাযোগ করতে হয় ।

আঞ্চলিক কেন্দ্রের বিজ্ঞাপন প্রচারের জন্য সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের

আঞ্চলিক পরিচালক এর সাথে যোগাযোগ করতে হয় ।

বিজ্ঞাপনে উৎপাদন খরচ ও বিজ্ঞাপনে প্রচারের জন্য

পৃকভাবে নির্ধারিত আছে ।

১৯

বাংলাদেশ বেতারের সংবাদসহ সকল অনুষ্ঠানে এ বিজ্ঞাপন

প্রচার করার সুযোগ আছে ।

স্পন্সর প্রাপ্তি সাপেক্ষে বাংলাদেশ বেতারে যে কোন খেলার

ধারা-বিবরণী সরাসরি সম্প্রচার করা যায় ।

বিস্তারিত জানতে নিমড়ব ঠিকানায় যোগাযোগ করা যেতে পারে :

বিজনেস ম্যানেজার

বাণিজ্যিক কার্যμ

বাংলাদেশ বেতার

১২১, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

ঢাকা-১০০০।

ফোনঃ ৯৬৭৫৩২৬, ৮৬১০৫৯৪,

সেলঃ ০১৫৫২-৩২৪১৭৭ ।

১৪। বাংলাদেশ বেতারের ওয়েব সাইট :

বাংলাদেশ বেতারের নিজস্ব একটি ওয়েব সাইট আছে যা সরকারের

কেন্দ্রীয় ওয়েব সাইটের সাথে ( তথ্য মমত্রণালয়ের মাধ্যমে ) সংযুক্ত ।

এটির ধফফৎবংং হল www.betar.org.bd । এই ওয়েব সাইটে

বেতারের ইতিহাস, ঐতিহ্য এবং স্বাধীনতাযুদ্ধে তার গৌরবোজ্জ্বল

ভূমিকার কথা এবং প্রচার কার্যμমের বিবরণী রয়েছে । বেতারের সাথে

যোগাযোগ, বেতারের বিভিনড়ব অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের জন্য ডিজিটাল

ফরমেটে বিভিনড়ব আবেদন ফরমসহ বিজ্ঞাপনের জন্য যাবতীয় তথ্যাদিও

এই সাইটে সনিড়ববেশিত আছে ।

এছাডা বেতারের কভারেজ নেটওয়ার্ক, আন্তর্জাতিক কোন কোন

সংসহার সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমে বেতার কার্যμম চালিয়ে যাচ্ছে তার

প্রাত্যহিক সকাল ৭টার বাংলা ও ৮ টার ইংরেজী সংবাদেরঃবীঃ

ফরমেটও এতে দেয়া হয় । উল্লেখ্য বেতারের বিভিনড়ব দরপত্র বিজ্ঞপ্তিও

এই ওয়েবসাইটে পাওযা যায় ।

২০

১৫। অভিযোগঃ

বর্ণিত সেবাসমূহ যথাসময়ে যথোপযুক্তভাবে না পাওয়া গেলে অথবা

সময়মত কোন অনুষ্ঠান শোনা না গেলে বা অনুষ্ঠানের বিষয়বস্তু প্রকরণ ও

কারিগরী বিষয় সম্পর্কে বাংলাদেশ বেতারের নিমেড়বাক্ত দাপ্তরিক ই-মেইল/

টেলিফোন এবং পত্র মারফত অভিযোগ গৃহীত হবে । শুধুমাত্র ই-মেইল ও পত্র

মারফত প্রাপ্ত অভিযোগ সম্পর্কে অনধিক ১০ দিনের মধ্যে লিখিত উত্তর প্রদান

করা হয় ।

মহাপরিচালক

উপ-মহাপরিচালক ( অনুষ্ঠান )

উপ-মহাপরিচালক ( বার্তা )

প্রধান প্রকৌশলী

পরিচালক ( প্রশাসন ও অর্থ )

৮৬৫১০৮৩

dgbetar@btcl.net.bd

৯৬৬২৬০০ ফ্যাক্স

৮৬১৪৯৪১

৮৬১৪৯৪৩

৮১১৮৭৩৪

৮৬১৬২৫৪

এছাড়া বাংলাদেশ বেতারের সদর দপ্তরের গুরুত্বপূর্ণ দাপ্তরিক

টেলিফোন নমবরসমূহ নিমড়বরূপ :

পরিচালক ( অনুষ্ঠান )

পরিচালক ( লিয়াজোঁ )

পরিচালক, শিক্ষা

পরিচালক, সংগীত

পরিচালক , বহির্বিশ্ব

পরিচালক, বাণিজিাক

পরিচালক, ট্রাণপশন

পরিচালক,কৃষি

পরিচালক, জনসংখ্যা

পরিচালক, বার্তা

পরিচালক, মনিটরিং

৮৬১৩৯৪৯

৮৬২৩৪৯০

৮৬১৬৭০০

৯৬৭২১৪৮

৮৬১৮১১৯

৮৬১০৫৯৪

৮৬১৫৫৩৫

৯১২৯৭৬৫

৯১৩১৬৩২

৮১১৫০৩৬, ৮১১৩৩৫৮

৯১১০১০৭

অতিরিক্ত পরিচালক ( প্রশাসন ও অর্থ )

সম্পাদক, বেতার প্রকাশনা দপ্তর

৮৬২৬২৯৬

৮১২৬৫১০

উপ-পরিচালক ( প্রশাসন ও অর্থ )

উপ-পরিচালক (সংসহাপন-১)

নিরাপত্তা অফিসার

অভ্যর্থনা

২১

৮৬১০৭৫০

৯৬৭২৮২৬

৯৬৭৫৫১৭

৯৬৭৫৩৩৪

বাংলাদেশ বেতারের ১১টি আঞ্চলিক কেন্দ্রের টেলিফোন নমবর :

আঞ্চলিক পরিচালক, ঢাকা ৯১১৭২০৪, ৯১১৭২০৬

আঞ্চলিক পরিচালক, চট্টগ্রাম ০৩১-৭১২৩৬১

আঞ্চলিক পরিচালক, রাজশাহী ০৭২১-৭৭৫৯৪০

আঞ্চলিক পরিচালক, খুলনা ০৪১-৭৬১৭৭৪

আঞ্চলিক পরিচালক, সিলেট ৮২১-৭১২৮৫৯

আঞ্চলিক পরিচালক, রংপুর

আঞ্চলিক পরিচালক, কক্সবাজার

আঞ্চলিক পরিচালক, বরিশাল

০৫২১-৬৩২০৫

০৩৪১-৬৪৭৯০

০৪৩১-৭১২০২

আঞ্চলিক পরিচালক, ঠাকুরগাঁও ০৫৬১-৫২০৩৭

আঞ্চলিক পরিচালক, রাঙ্গামাটি ০৩৫১-৬১৯৬৩

আঞ্চলিক পরিচালক, বান্দরবান ০৩৬১-৬২৬১১

বাংলাদেশ বেতারের প্রকৌশল শাখার দাপ্তরিক টেলিফোন

নমবর :

আঞ্চলিক কেন্দ্রসমূহ :

সিনিয়র প্রকৌশলী, জাতীয় বেতার ভবন, ঢাকা ৮১২১৯১৩

আঞ্চলিক প্রকৌশলী, শাহবাগ, ঢাকা

আঞ্চলিক প্রকৌশলী, চট্রগ্রাম

আঞ্চলিক প্রকৌশলী, রাজশাহী

আঞ্চলিক প্রকৌশলী, খুলনা

আঞ্চলিক প্রকৌশলী, সিলেট

৮৬২৬৫৩০

০৩১-৭১২৩৬২

০৭২১-৭৭২১৫১

০৪১-৭৬২৩৩০

০৮২১-৭১৬৫১৫

আঞ্চলিক প্রকৌশলী, রংপুর ০৫২১-৬২২৭১

আঞ্চলিক প্রকৌশলী, কক্সবাজার ০৩৪১-৬৪৭৯০

আঞ্চলিক প্রকৌশলী, বরিশাল ০৪৩১-৭১২২৫

আঞ্চলিক প্রকৌশলী, ঠাকুরগাঁও ০৫৬১-৫৩৪৯৬

আঞ্চলিক প্রকৌশলী, রাঙ্গামাটি ০৩৫১-৬২২৫৪

আঞ্চলিক প্রকৌশলী, বান্দরবান

*****

২২

০৩৬১/৬২৬১২